শবনম ফারিয়া । মডেল ও অভিনেত্রী

শবনম ফারিয়া হলেন একজন বাংলাদেশী অভিনেত্রী এবং মডেল, যিনি প্রধানত বাংলা নাটকে অভিনয় করে থাকেন। ২০১৮ সালে দেবী চলচ্চিত্র দিয়ে তার চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে, যে কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে বাচসাস পুরস্কার এবং শ্রেষ্ঠ নবীন অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন। বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী দের মধ্যে অন্যতম হলেন শবনম ফারিয়া । প্রাণ চানাচুর বিজ্ঞাপন এর মাধ্যমে টিভি এর পর্দায় পদার্পণ করেন। তার বিষয়ে কিছু অজানা তথ্য নিয়ে আমরা হাজির হলাম ।

শবনম ফারিয়া । মডেল ও অভিনেত্রী

 

প্রারম্ভিক জীবন

ফারিয়া ১৯৯০ সালের ৬ জানুয়ারি বাংলাদেশের ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি থেকে ইংরেজি বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তার পৈতৃক নিবাস চাঁদপুরে। তার পিতা পেশায় একজন ডাক্তার এবং মাতা গৃহিনী। ফারিয়া ২০১৮ সালে এশিয়াটিক জে ডব্লিউটি’র ব্র্যান্ড ম্যানেজার হারুনুর রশীদ অপুর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ২০২০ সালের ২৭ নভেম্বরে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে।

কর্মজীবন

ফারিয়া টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজের মাধ্যমে মিডিয়া জগতে প্রবেশ করেন। এরপর ২০১৩ সালে তিনি অল টাইম দৌড়ের উপর নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেন।মডেলিং ও টেলিভিশনে অভিনয় দিয়ে কর্মজীবন শুরু করা শবনম ফারিয়া (Shabnam Faria) জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ‘দেবী‘ দিয়ে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন।

শবনম ফারিয়া । মডেল ও অভিনেত্রী

কিছু অজানা তথ্য:

ছোট পর্দার অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া ও হারুনুর রশিদ অপুর বিবাহ বিচ্ছেদের দুই বছরেরও কম সময়ের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায়।শুক্রবার (২ November নভেম্বর) তারা বিবাহ বিচ্ছেদের কাগজে স্বাক্ষর করেন।

জানতে চাইলে শবনম ফারিয়া বলেন, “প্রেমের পর আমরা একে অপরকে বিয়ে করেছি। পরিবারকে ঘিরে অনেক পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু নানা কারণে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। ফলস্বরূপ, আমরা দুজনেই পৃথক পথে যাওয়ার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ”

শবনম ফারিয়া । মডেল ও অভিনেত্রী

গত বছর ১ ফেব্রুয়ারি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এই দম্পতি। হারুনুর রশিদ অপু একজন বেসরকারি চাকরিধারী। ২০১৫ সালে ফেসবুকের মাধ্যমে তারা একে অপরকে পরিচয় করিয়ে দেয়। তারপর তারা প্রেমে পড়ে এবং গাঁটছড়া বেঁধে যায়।

আরও দেখুনঃ

মন্তব্য করুন