নুসরাত ইমরোজ তিশা । মডেল ও অভিনেত্রী

নুসরাত ইমরোজ তিশা বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী। টিভি নাটকের মাধ্যমে তিনি তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। তবে গান দিয়েই শুরু হয়েছিল তিশার পথচলা। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তিনি সকল শ্রেণীর দর্শকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। তিনি বিভিন্ন টিভি বিজ্ঞাপন ও নাটকে নিয়মিত অভিনয় করছেন। পাশাপাশি কিছু চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন।

তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহ হল নাট্যধর্মী থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার (২০০৯), টেলিভিশন (২০১২), ক্রীড়া নাট্যধর্মী অস্তিত্ব (২০১৬), নাট্যধর্মী ডুব (২০১৭) এবং হালদা (২০১৭)। অস্তিত্ব চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া তিনি ১০টি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেছেন।

নুসরাত ইমরোজ তিশা । মডেল ও অভিনেত্রী

জন্ম

নুসরাত ইমরোজ তিশা ১৯৮২ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাজশাহীতে জন্মগ্রহন করেন।

প্রাথমিক জীবন

১৯৯৫ সালে নতুন কুঁড়ি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান পাওয়া নুসরাত ইমরোজ তিশার মিডিয়া জগতে পদার্পণ টেলিভিশনের মাধ্যমেই। শিশুশিল্পী হিসেবে মূলত গান করতেন। ১৯৯৭ সালে অনন্ত হীরার সাতপেড়ে কাব্য নামে একটি নাটকে শিশুশিল্পী হিসেবে শখের বশে অভিনয়ের মাধ্যমে অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন। ২০০৩ সাল থেকে অভিনয় ও মডেলিং ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। তিশা এঞ্জেল ফোর নামের একটি ব্যান্ড দলও গঠন করেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবন

ব্যক্তিগত জীবনে নুসরাত ইমরোজ তিশা ২০১০ সালের ১৬ জুলাই টিভি ও চলচ্চিত্র পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। ২০১৪ সালের অক্টোবরে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে তিশার অ্যাপেনডিসাইটিসের অস্ত্রোপচার হয়।

নুসরাত ইমরোজ তিশা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে বিচ্যুত ছিলেন। এতে তার ভুয়া অ্যাকাউন্ট থেকে ভক্তরা প্রতারিত হচ্ছিল। তাই তিনি ২০১৬ সালের নভেম্বরে তার একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলেন। অ্যাকাউন্টটি পরিচালনা করে পপকর্ন ডিজিটাল।

নুসরাত ইমরোজ তিশা চলচ্চিত্র দেখতে পছন্দ করেন। তার প্রিয় চলচ্চিত্র হল ন্যাটালি পোর্টম্যান অভিনীত ব্ল্যাক সোয়ান। এছাড়া স্টিল অ্যালিস চলচ্চিত্রে জুলিঅ্যান মুরের করা চরিত্রটি তার পছন্দের চরিত্র।

নুসরাত ইমরোজ তিশা । মডেল ও অভিনেত্রী

কর্মজীবন

১৯৯৮ সালে সাত প্রহরের কাব্য নাটক দিয়ে তিশার টেলিভিশন পর্দায় অভিষেক হয়। নাটকটি রচনা করেন অনন্ত হীরা এবং পরিচালনা করেন আহসান হাবীব।

২০১৪ সালে তিনি দীর্ঘ ৬ বছর পর টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজ করেন। তাকে স্কয়ারের একটি পণ্যের বিজ্ঞাপনে সঙ্গীতশিল্পী তাহসানের বিপরীতে দেখা যায়। ২০১৬ সালে তার অভিনীত দুটি মূলধারার বাণিজ্যিক চলচ্চিত্র মুক্তি পায়। ৬ই মে মুক্তি পাওয়া অস্তিত্ব চলচ্চিত্রে তিনি একজন বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী চরিত্রে অভিনয় করেন।

অনন্য মামুন পরিচালিত এই ছবিতে তার বিপরীতে ছিল আরিফিন শুভ। শুভর সাথে তিনি পূর্বে ফারুকী পরিচালিত ওয়েটিং রুম টেলিছবিতে অভিনয় করেছিলেন। অন্যদিকে অপর চলচ্চিত্র রানা পাগলা: দ্য মেন্টাল-এ তিনি শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন। অস্তিত্ব চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য ৪১তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার আয়োজনে তিনি কুসুম শিকদারের সাথে যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন।

২০১৭ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর বহুল আলোচিত ডুব চলচ্চিত্রে একজন স্বনামধন্য পরিচালকের কন্যা চরিত্রে কাজ করে তিনি প্রশংসিত হন। এতে তার বাবার চরিত্রে অভিনয় করেন ইরফান খান। একই বছর তিনি হালদা নদী নিয়ে সচেতনতামূলক হালদা চলচ্চিত্রে হাসু চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা অর্জন করেন।

২০১৮ সালে ভালোবাসা দিবস উপলক্ষ্যে সাগর জাহান নির্মিত একটি মধ্যবিত্ত ফ্রিজের গল্প নাটকে তাকে তাহসানের বিপরীতে দেখা যায়। তিনি ফারুকী নির্মিত ডাবর মেথি আমলা হেয়ার অয়েলের বিজ্ঞাপনে কাজ করেন। এই বছর সেপ্টেম্বর মাসে তিনি ও অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী মুঠোফোন সেবাদানকারী কোম্পানি রবি আজিয়াটা লিমিটেডের শুভেচ্ছাদূত হন এবং আটটি বিজ্ঞাপন চিত্রে কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন। তিনি বাংলা ভাষা আন্দোলন নিয়ে নির্মিত তৌকীর আহমেদের ফাগুন হাওয়ায় (২০১৯) ছবিতে সিয়াম আহমেদের বিপরীতে অভিনয় করেন।

নুসরাত ইমরোজ তিশা । মডেল ও অভিনেত্রী

পুরস্কার ও সম্মাননা

  • নতুন কুঁড়ি জাতীয় পুরস্কারে প্রথম স্থান – ১৯৯৫
  • জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
  • মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার
  • CZFV পুরস্কারপ্রাপ্ত (২০০৪-২০০৫)
  • চ্যানেল আই -এর দুবাই পুরস্কার
  • এনটিভি -এর লন্ডন পুরস্কার

আরও দেখুনঃ

মন্তব্য করুন